marxengels-678x381-1

14

Mar 22

“He may have had many opponents, he had hardly one personal enemy” – Engels, On Marx

একটি নির্দিষ্ট লক্ষ্যের দিকে এগোনোর কাজে এমন কেউ নেই যিনি অজাতশত্রু। মার্কস এমনই কতিপয় শত্রুকে পৃথিবীতে ছেড়ে গেলেন। তার রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড তাকে ইউরোপের এমন একজনে পরিণত করেছে যার নামে সবচেয়ে বেশি ঘৃণা এবং কুৎসা প্রচার করা হয়েছে। কদাচিৎ কখনো কেউ তার নামে অপবাদ দেবার সাহস দেখিয়েছে। মৃত্যুর পূর্বে সেইসব অপবাদের সম্মুখে তিনি দেখে গেছেন পৃথিবী জূড়ে তাঁর লক্ষ লক্ষ সমর্থকদের - সাইবেরিয়ার খনি থেকে ইউরোপ এবং আমেরিকার কারখানা অবধি যাদের বিস্তৃতি, ব্যাপ্তি। তিনি নিশ্চিত হয়েছেন পৃথিবীজূড়ে সমাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় তাঁর আবিষ্কৃত অর্থনৈতিক তত্ত্বই হবে বুনিয়াদি শক্তি। অত্যন্ত জোর দিয়েই বলা যায় তার মতের বিরোধী অনেকেই ছিলেন কিন্তু তার ব্যাক্তিগত শত্রু একজনও নেই
আরও পড়ুন

8

Mar 22

Police Atrocity: Kolkata!

এসএফ আই রাজ্য সভাপতি প্রতিকুর রহমান জানিয়েছেন, ‘আমরা পরিষ্কার ভাবে বলছি আজ যদি ওদের ছাড়া না হয়, কাল থেকে গোটা কলকাতা সহ বাংলা অচল করে দেবো। এটা হুশিয়ারি ভাবলে তাই, দাবি ভাবলে তাই, অনুরোধ ভাবলেও তাই। এই ভাবে আনিসের খুনী দের আড়াল করতে পারবেন না, আমরা রাস্তাতেই বুঝে নেবো’।
আরও পড়ুন
Stalin

5

Mar 22

Why are you fooling about boys, I’ll be with you soon…

কমরেড স্তালিনের নামে অপবাদ, মিথ্যা অভিযোগ, কুৎসা ইতিহাসের একটা বিশেষ পর্বে শুরু হয়, আজও সেই ধারা বিভিন্ন কায়দায় বয়ে চলেছে। এসবের উদ্দেশ্য একটাই যাতে জনগণের ঐক্যকে ভেঙ্গে দেওয়া যায়, মুল সমস্যা থেকে চোখ ঘুরিয়ে দিয়ে চলতি শোষণের ব্যাবস্থাকেই কায়েম রাখা যায়। নিকিতা ক্রশ্চেভের ষড়যন্ত্রে যে অসভ্যতার শুরু তাকে মাও সে তুং-এর কথা দিয়েই শেষ করা যায় - "The opportunists in the history of the international communist movement were unable to negate Marx, Engels or Lenin by vilification, nor is Khrushchov able to negate Stalin by vilification."
আরও পড়ুন
communist Internatonal

2

Mar 22

Struggle By All Available Means: Comintern

লেনিন আপস-রফাপন্থী এই সংশোধনবাদী ব্যাধির বিরুদ্ধে লড়াই শুরু করেন। ১৯১৬ সালে সেই সংশোধনবাদী জোট ভেঙ্গে যায়। লেনিনের নেতৃত্বে গঠিত হয় দুনিয়ার মজদুরদের এক হবার প্রকৃত তৃতীয় আন্তর্জাতিক – কমিন্টার্ন।
আরও পড়ুন
Bruno Feature

17

Feb 22

“Your Fear Is Greater Than Mine” – Remembering Giordano Bruno

শেষ অবধি অদম্য জেদ এবং সাহসকে সত্যের পথে অবিচল রাখাই নিজের জীবন রক্ষার চেয়ে বেশী গুরুত্বপূর্ণ বলে সিদ্ধান্ত নিলেন। বিচারের সময় অত্যন্ত তাচ্ছিল্যের সাথে বিচারকের উদ্দেশ্যে বলেছিলেন " আমার শেষবিচার সম্পর্কে আমার থেকেও আপনাদের ভয় বেশী"।
আরও পড়ুন

15

Feb 22

“The Bible shows the way to go to heaven, not the way the heavens go” – A Memoir To Galileo Galilei

চার্চের অধীনস্ত বিদ্যালয়ের ছাত্রাবস্থায় এক ঝড়ের সন্ধ্যায় হাওয়ায় দুলতে থাকা লণ্ঠনের দুলুনির সময় মাপতে নিজের হাতের নাড়ি টিপে পরীক্ষা করেছিলেন গ্যালিলিও, বিস্ময়ের সাথে পর্যবেক্ষণ করেছিলেন লণ্ঠনের দুলুনির সময় দুদিকে যেতে আসতে একই সময় লাগে।
আরও পড়ুন
Battle Of StalinGrad

31

Jan 22

Battle Of StalinGrad: The Fight That Save The World

গনতন্ত্র, স্বাধীনতা, মানুষের অধিকার এই শব্দগুলো যতদিন মানবসমাজে প্রাসঙ্গিক থাকবে ততদিনই ইতিহাসের পাতায় আজকের পৃথিবীর মানুষের জন্য একটি ঋণের হিসাবও লেখা রয়ে যাবে। সেই ঋণ সেদিন লেখা হয়েছিল যেদিন সোভিয়েত লাল ফৌজের যান কবুল লড়াইয়ের সামনে আত্মসমর্পণ করেছিল হিটলারের অহংকার, জার্মান সেনাবাহিনী্র ষষ্ঠ ডিভিশন। ইতিহাসের পাতায় সেই আত্মসমর্পণ হয়েছিল আজকের দিনে - ৩১শে জানুয়ারি, ১৯৪৩ সালে।
আরও পড়ুন
Prison-Notebooks

22

Jan 22

Antonio Gramsci: A Life To Remember

গ্রামশি বুঝেছিলেন তিনি বেরিয়ে যেতে পারলেও ইতালির সর্বহারা – মেহনতি জনগণের কোথাও যাওয়ার নেই, যতক্ষণ না তার বুঝবেন তাদের নিজেদের দেশে গ্রামশির থাকা নিরাপদ নয় তার আগে চলে যাওয়ার অর্থ হবে জনগণের মনে ভয়ের উদ্রেক হতে সাহায্য করা। প্রকৃত বিপ্লবী ছিলেন বলেই নিশ্চিত মৃত্যুর সামনে দাঁড়িয়েও আশাবাদী ছিলেন – সিনেমার নায়কের মতো অ্যাডভেঞ্চার কমিউনিস্ট বিপ্লবীকে মানায় না, সিনেমার নায়ক সর্বদা জিতলেও জনগণের সংগ্রামের নায়ককে কখনো ব্যার্থ হতে হয়। তাহলেও শেষ অবধি তিনি জনগণের স্বার্থকেই নিজের স্বার্থ বলে মনে করেন, এখানেই গ্রামশির সংগ্রাম নতুন ইতিহাস রচনা করে, এখানেই নিহিত থাকে গ্রামশির উত্তরাধিকার।
আরও পড়ুন

21

Jan 22

Last Days Of Lenin: A Memoir

বিপ্লবী লেনিন, মানুষ লেনিন মারা গেছেন, আমাদের কাজ লেনিনবাদকে বাঁচিয়ে রাখা - মার্কসবাদকে বাঁচিয়ে রাখতে লেনিনবাদকে রক্ষা করা আমাদের অন্যতম কর্তব্য।
আরও পড়ুন
Surya Sen

12

Jan 22

Surya Sen: A Master’s Stroke

মৃত্যুদিবসে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানাতে গিয়ে মনে রাখতে হবে তাঁর দেখানো পথের ব্যাপারটা শুধু রগের শিরায় খুন চাপিয়ে হাতের আঙ্গুল চিপে ট্রিগার চালানো নয়, একেবারেই নয়। সূর্য সেন সম্পর্কে অমন একটা সংকীর্ণ ধারণাই আমাদের চেতনায় গেঁথে দিতে চেয়েছে সাম্রাজ্যবাদ, তাতে লুঠেরা ব্যবস্থারই মুনাফা। সূর্য সেন আসলে একটা প্রতীক, শাসকের নিশ্ছিদ্র বন্দোবস্ত সম্পর্কে যাবতীয় অহংকার চুরমার করে দেবার প্রতীক, নিরীহ অসহায়রা একজোট হলে অতি বড় পরাক্রমী শাসকেরও হার নিশ্চিত এই ঐতিহাসিক শিক্ষার প্রতীক, সবশেষে শত্রুর অস্ত্রাগারই আমাদের অস্ত্রাগার এই উপলব্ধিরও প্রতীক। তাঁর প্রতিকৃতি বা মূর্তিতে নির্দিষ্ট দিনে মালাটুকু চাপিয়ে কর্তব্য সমাধা করার নামে প্রতি বছর তাকে বারংবার খুন করা হচ্ছে কিনা সেকথা ভেবে দেখার সময় এসেছে।
আরও পড়ুন

সাম্প্রতিক ঘটনা

PB Statement

Jiang Zemin – Condolence

১ ডিসেম্বর, ২০২২ ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী) চীনের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিসি) প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক এবং গণপ্রজাতন্ত্রী…

আরও পড়ুন

শেয়ার করুন