পলিট ব্যুরোর বিবৃতি

রবিবার,২০ ডিসেম্বর,২০২০

২০২০ সালের ১৯ ডিসেম্বর ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী) এর পলিট ব্যুরো অনলাইনে মিটিং করে নিম্নলিখিত বিবৃতি জারি করেছে:

কেরালার বিজয়ে অভিনন্দন

পলিট ব্যুরো কেরালার স্থানীয় সংস্থা নির্বাচনগুলিতে এলডিএফের জয়ের প্রশংসা করেছে এবং কেরালার জনগণকে আবারও এলডিএফের প্রতি আস্থা রাখার জন্য সালাম জানায়।

এলডিএফ ১৪টে জেলা পরিষদের মধ্যে ১১টিতে জয়লাভ করেছে যেখানে ২০১৫তে ৭টি জয়লাভ করেছিল। পৌর কর্পোরেশনগুলিতে, ৬ টির মধ্যে এলডিএফ ৫টি জিতেছে, ২০১৫ সালে ৪টিতে জয়লাভ করেছিল।সর্বস্তরেই এলডিএফ অতীতের চেয়ে উন্নতি করেছে।

কৃষক সংগ্রাম

পলিট ব্যুরো পশ্চাদপদ কৃষি আইন ও বিদ্যুৎ (সংশোধনী) বিল, ২০২০ বাতিলের দাবিতে ৫০০টিরও বেশি সংংগঠনের যারা শান্তিপূর্ণভাবে কিন্তু দৃঢ়তার সাথে ঐক্যবদ্ধভাবে সংগ্রাম করছে তাদের প্রশংসা করছে।

পলিট ব্যুরো সিপিআই (এম) এর নিরন্তর সমর্থন এবং সংগ্রামের সাথে সংহতি প্রসারিত করছে। পলিট ব্যুরো ভারতীয় কৃষি এবং আমাদের অন্নদাতাদের রক্ষায় এই গৌরবময় সংগ্রামের সমর্থনে সকল দলীয় ইউনিটকে সংহতিমূলক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করার আহ্বান জানিয়েছে।এই সংগ্রাম ২৫ তম দিনে প্রবেশ করেছে।পলিট ব্যুরো এই সংগ্রামে ৩১ জন কৃষকের শহীদের মৃত্যু বরণ করাকে সালাম জানায়। উত্তর ভারত জুড়ে তীব্র শৈত্যপ্রবাহের মধ্যেও আরো বেশি সংখ্যক কৃষক এই আন্দোলনে যুক্ত হচ্ছেন এবং একে শক্তিশালী করছেন।

পলিট ব্যুরো সিপিআই (এম) এর দাবি পুনর্বার জানায় যে কেন্দ্রীয় সরকার এই কৃষি আইন বাতিল করুক এবং তারপরে কৃষক ও অন্যান্য অংশীদারদের সাথে কৃষি সংস্কারের বিষয়ে আলোচনা করতে বসুক এবং তার ভিত্তিতে সংসদে নতুন আইন কার্যকর করা যেতে পারে।

অসহনীয় মূল্যবৃদ্ধি

মহামারী, অপরিকল্পিত এবং অপ্রত্যাশিত লকডাউন দ্বারা জনগণের জীবন ও জীবিকা নির্বাহের ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব দুর্দশাগুলোর মধ্যেই অত্যাবশ্যকীয় পণ্যগুলোর ভয়াবহ মূল্যবৃদ্ধি মানুষের দুর্দশা আরো বাড়িয়ে তুলেছে।

পেট্রোলিয়াম পণ্য, পেট্রোল এবং ডিজেলের দাম ক্রমাগত বৃদ্ধি করা হয়েছে।পরিবহন ব্যয় বৃদ্ধির কারণে এটি সামগ্রিক মুদ্রাস্ফীতির চক্রটিকে ত্বরান্বিত করে।ভারতে আজ পেট্রোলিয়াম পণ্যগুলিতে বিশ্বের সর্বাধিক হারের কর রয়েছে।কেন্দ্রীয় সরকার জনগণের দুর্দশায় ভর করে সম্পদ সংগ্রহ করছে।

সর্বোপরি রান্নার গ্যাস সিলিন্ডারের দাম বেড়েছে ব্যাপক হারে।২০২০ সালের নভেম্বর থেকে ডিসেম্বরের মধ্যে একটি গ্যাস সিলিন্ডারের দাম বেড়েছে ১০০টাকা।
প্রাক-মহামারী অর্থনৈতিক মন্দার কারণে হওয়া সমস্যাগুলি এই বছর চলাকালীন আরও বেড়েছে।প্রধানমন্ত্রী মোদী এবং তাঁর সরকার জনগণের উপর আরও বোঝা চাপিয়ে দেওয়ার বিষয়ে সম্পূর্ণ উদাসীন বলে মনে হচ্ছে।

বিপজ্জনক ক্ষুধা ও ক্রমবর্ধমান কর্মচ্যুতি

সাম্প্রতিকতম জাতীয় পরিবার স্বাস্থ্য সমীক্ষাটি ভারতের ভবিষ্যতের, বিশেষত আমাদের শিশুদের মধ্যে অপুষ্টিজনিত এক উদ্বেগজনক বৃদ্ধি দেখিয়েছে।এটি আমাদের ক্ষুধা সতর্কতার ইঙ্গিত দেয় যা আমাদের দেশের মানুষের স্বাস্থ্যকে ধ্বংস করছে।

প্রধানমন্ত্রী মোদী এবং কেন্দ্রীয় সরকার এমনকি অভাবনীয় কর্মসঙ্কোচন এবং ক্রমবর্ধমান ক্ষুধার মুখেও সমস্ত অভাবী মানুষকে নগদ স্থানান্তর এবং বিনামূল্যে খাবার দিতে অস্বীকার করেছে।এফসিআই গোডাউনগুলিতে ১০ কোটি টনেরও বেশি খাদ্যশস্য নষ্ট হচ্ছে তবুও সরকার বিনামূল্যে তা বিতরণ করতে অস্বীকার করেছে।

পলিট ব্যুরো অবিলম্বে ছয় মাসের জন্য নগদ ৭৫০০ টাকা স্থানান্তর এবং পরবর্তী ছয় মাসের জন্য পৃথকভাবে জনপ্রতি ১০ কেজি করে খাদ্যশস্য বিতরণ করার পার্টির দাবি পুনরায় করছে।

সেন্ট্রাল ভিস্তা

দেশের মানুষের অন্নসংস্থানের জন্য এবং তাদের জীবিকা নির্বাহের কিছু উপায় করার জন্য উপলভ্য সংস্থানগুলি ব্যবহার করার পরিবর্তে, এই কেন্দ্রীয় সরকার একটি নতুন সংসদভবন সহ সেন্ট্রাল ভিস্তা , নতুন ভবন নির্মাণে আমাদের দেশের সম্পদগুলোকে ব্যবহার করছে।এই মহামারী ও জনগণের দুর্ভোগের মাঝে প্রধানমন্ত্রী নতুন সংসদভবন তৈরির ভিত্তি স্থাপন করেছেন।

সিপিআই (এম) এর দাবি, সেন্ট্রাল ভিস্তার এই প্রকল্পটি বাতিল করতে হবে।এর জন্য বরাদ্দকৃত অর্থটি অবশ্যই আমাদের দুর্দশাগ্রস্থ মানুষকে বিনামূল্যে খাবার এবং নগদ স্থানান্তরের জন্য বরাদ্দ করতে হবে।

সংসদের শীতকালীন অধিবেশন বাতিল করা

পলিট ব্যুরো কোভিড মহামারীর অজুহাত দেখিয়ে সংসদের শীতকালীন অধিবেশন বাতিল করার অভূতপূর্ব সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা করছে।এই মহামারীতে নির্বাচনী প্রচার,সভা,সমাবেশ করতে বিজেপির কোন সমস্যা হয়নি কিন্তু তারা সংসদে জবাবদিহি এড়াতে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।এরা সংসদে জবাবদিহি করার সাংবিধানিক দায়িত্ব এড়িয়ে যাচ্ছে।

স্পষ্টতই, মোদী সরকার মহামারীকে কার্যকরভাবে মোকাবিলায় এবং অর্থনৈতিক মন্দা নিয়ন্ত্রণে তাদের ব্যর্থতা এবং জনগণের জীবন-জীবিকার ওপর আক্রমণ করে এবং শ্রমজীবী ​​ও কৃষকের অধিকারকে নষ্ট করার বিষয়ে তাদের সর্বাত্মক ব্যর্থতার বিষয়ে প্রশ্নের উত্তর দেওয়া থেকে পালিয়ে যাচ্ছে।জনগণ সরকারকে জবাব দিতে বাধ্য করবে।

উইস্ট্রন শ্রমিক প্রতিবাদ

পলিট ব্যুরো উল্লেখ করেছে যে শ্রমিকদের প্রতিবাদ এবং বেঙ্গালুরুর নিকটবর্তী উইস্ট্রন কোম্পানির কারখানায় যে ঘটনা ঘটেছিল তা হল চার মাসের জন্য ঠিকা শ্রমিকদের বেতন না দেওয়া এবং ওভারটাইম বেতন ব্যতীত ১২ ঘন্টা কাজ করানোর প্রতিবাদ। বহুজাতিক সংস্থাটি অ্যাপল কর্পোরেশনের আই ফোন তৈরির ঠিকাদার সংস্থা। কারখানায় নিযুক্ত ১০,০০০ শ্রমিকের মধ্যে আশি শতাংশেরও বেশি অস্থায়ী ঠিকা শ্রমিক।বিদ্যমান আইন লঙ্ঘন করাই হল এমএনসিগুলোর মালিকানাধীন উদ্যোগগুলোর রীতি।নতুন শ্রম কোড কার্যকর হওয়ার পরে এটি শ্রমিকদের অধিকার লঙ্ঘনের জন্য খোলা আমন্ত্রণ হয়ে যাবে।
আশ্চর্যের বিষয় যে কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী শ্রমিকদের নিন্দা করছেন এবং এই সংস্থাটিকে সমর্থন করছেন যখন খোদ অ্যাপল কর্পোরেশন জানিয়েছে যে তার সরবরাহকারী সংস্থা নীতি লঙ্ঘন করেছে।
পলিট ব্যুরো শ্রমিকদের ব্যাপক গ্রেপ্তার এবং পুলিশি দমনকে ধিক্কার জানায়।মোদী সরকারকে দেশে এফডিআই আকৃষ্ট করার খাতিরে শ্রমিক বিরোধী অবস্থান গ্রহণ বন্ধ করতে হবে।

পরবর্তী কেন্দ্রীয় কমিটির সভা

পলিট ব্যুরো ,৩০-৩১ জানুয়ারি ২০২১, পার্টির পরবর্তী কেন্দ্রীয় কমিটির সভা আহ্বান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

পি.বি এর আহ্বান

পলিট ব্যুরো সকল দলীয় ইউনিটকে আহ্বান জানিয়েছে:

কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে কৃষকদের চলমান সংগ্রামের সাথে সংহতিমূলক কর্মকাণ্ডের আয়োজন করা।
বৃহত্তর বেসরকারীকরণ, শ্রম আইন বাতিল এবং ভারতের জাতীয় সম্পদ লুটপাটের বিরুদ্ধে চলমান লড়াইয়ে শ্রমিক শ্রেণির পদক্ষেপগুলিকে সমর্থন করার।
জনগণের চলমান সংগ্রামের বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকার কর্তৃক ভ্রান্ত তথ্যের অপপ্রচারের বিরুদ্ধে তীব্র প্রচার চালানো।


শেয়ার করুন

উত্তর দিন