আমেরিকার সাথে সামরিক জোট জাতীয় স্বার্থে নয়

২৮অক্টোবর,বুধবার,২০২০

ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী) [সিপিআই (এম)] এবং ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি [সিপিআই] নিম্নলিখিত বিবৃতি জারি করেছে:

২৭ অক্টোবর দিল্লিতে অনুষ্ঠিত ভারতীয় ও মার্কিন প্রতিরক্ষা ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের ২ + ২ বৈঠকের ফলে ভূ-স্থানীয় সহযোগিতার বিষয়ে বেসিক এক্সচেঞ্জ এবং সহযোগিতা চুক্তি (বিইসিএ) স্বাক্ষরিত হয়েছে।

এই চুক্তির মাধ্যমে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে সামরিক জোটের জন্য তথাকথিত সমস্ত মূল চুক্তি সম্পন্ন হয়েছে।এই চুক্তিতে নভেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য কোয়াডের চার অংশীদারদের মধ্যে যৌথ নৌ মহড়া, "মালবার মহড়া" এর পরিপ্রেক্ষিত লক্ষ্যনীয় ।

লাদাখের এলএসি নিয়ে চীনের সাথে সাম্প্রতিক উত্তেজনার অজুহাত দিয়ে এই পদক্ষেপগুলোকে যুক্তিযুক্ত করা হচ্ছে।কিন্তু এই চুক্তিগুলো বর্তমান সীমান্ত অস্থিরতার অনেক আগে থেকে পরিকল্পনার মধ্যে ছিল।গত কয়েক বছরে লজিস্টিক এক্সচেঞ্জ চুক্তি, যোগাযোগ সুরক্ষা চুক্তি এবং চতুর্ভুজ ফোরামের স্তরোন্নয়ন সবই হয়েছে।

চুক্তিগুলো মার্কিন সামরিক বাহিনী এবং তাদের কৌশলগত নকশার সাথে ভারতীয় সশস্ত্র বাহিনীকে আবদ্ধ করে।মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে যোগাযোগ ও বৈদ্যুতিন ব্যবস্থার আন্তঃসংযোগ ভারতীয় প্রতিরক্ষা কাঠামোর অখণ্ডতা এবং স্বাধীন সিদ্ধান্ত গ্রহণকে বিরূপভাবে প্রভাবিত করতে পারে।এই চুক্তিগুলি আমাদের মার্কিন অস্ত্রের উপর নির্ভরশীল করে তুলবে যার প্রযুক্তি এবং ব্যবস্থাগুলো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হতে চলেছে।


মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে উদীয়মান সামরিক জোট দীর্ঘমেয়াদী প্রভাব ফেলবে ভারতের স্বাধীন বিদেশ নীতি এবং কৌশলগত স্বায়ত্তশাসনের ক্ষেত্রে। এটা জাতীয় স্বার্থের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়।সীমান্ত সমস্যা সমাধানের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের সর্বোচ্চ রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক পর্যায়ে চীনের সাথে আলোচনা চালিয়ে যাওয়া উচিত; এর জন্য ভারতকে এশিয়ায় আমেরিকার ভূ-রাজনৈতিক কৌশলের অধীনস্থ হতে হবে না।

স্বাক্ষর
সীতারাম ইয়েচুরি
সাধারণ সম্পাদক, সিপিআই (এম)
স্বাক্ষর
ডি রাজা
সাধারণ সম্পাদক, সিপিআই


শেয়ার করুন

উত্তর দিন