Gandhi's Last Day 1

মহাত্মার শেষ দিন (১ম পর্ব)

ভারতবাসী অহিংসা কোনোদিনই গ্রহণ করেনি, করলেও তার চর্চা করেনি – এই দেশ তাকে মহাত্মা মেনেছে ঠিকই কিন্তু তার মাহাত্ম্য আদৌ স্বীকার করেনি। তিনি ব্যর্থ হয়েছেন।

Cuban Health System

স্বাস্থ্যের বিপ্লব, বিপ্লবের স্বাস্থ্য

পুঁজিবাজার দ্বারা আক্রান্ত স্বাস্থ্য ব্যবস্থা। মুনাফা তৈরীর ঠেকে পরিণত হয়েছে সমগ্র পরিকাঠামো। তার বিরুদ্ধে লড়াই চলছে নিরন্তর। প্রতিনিয়ত বিকল্পের সন্ধান নিয়ে হাজির হচ্ছে বামপন্থীরা।

সংবিধানকে রক্ষা করাই এখন সবচাইতে জরুরী কাজ ...

ভারতীয় সংবিধানের মুখবন্ধ অর্থাৎ প্রস্তাবনার অংশটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ যার রূপ দিয়েছিলেন স্বয়ং জহরলাল নেহেরু। এই প্রস্তাবনায় বলা হয়েছে ভারত একটি সার্বভৌম সমাজতান্ত্রিক ধর্মনিরপেক্ষ গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্র হিসেবে গড়ে উঠবে।

কলুষিত প্রচেষ্টার বিরুদ্ধে সুভাষিত দেশপ্রেমের মশাল

কমিউনিস্টদের আনা পূর্ণ স্বরাজের প্রস্তাবের পক্ষে ব্যাটন ধরেন সুভাষচন্দ্র বসু। আবার কংগ্রেসের সভাপতি পদে সুভাষচন্দ্র বসুর নাম প্রস্তাব করেন কমিউনিস্টরা।

Gramsci and Election

কমিউনিস্ট পার্টি, নির্বাচন এবং বিপ্লবী শ্রমিকশ্রেণীর সমাবেশ

১৯২১ সালের জানুয়ারি মাসে ইতালির কমিউনিস্ট পার্টি (PCI)- এর প্রথম কংগ্রেস আয়োজিত হয়, লিভর্নো শহরে। উনত্রিশ বছর বয়সী আন্তোনিও গ্রামশি ততদিনে গোটা ইতালিতে অন্যতম বামপন্থী বিপ্লবী নেতা হিসাবে পরিচিত হয়েছেন। ফ্যাক্টরি কাউন্সিল আন্দোলনের প্রভাবে তুরিন-কে ইতালির “পেত্রোগ্রাদ” বলা শুরু হয়ে গেছে। গ্রামশি তখন L’Ordine Nuovo নামক সাপ্তাহিক পত্রিকায় নিয়মিত লিখছেন। ১৯২১ সালের ১২ই এপ্রিল The Communists and The Elections শিরোনামে L’Ordine Nuovo’তে একটি প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়। একশো বছর পরেও সেই প্রবন্ধের বক্তব্য অত্যন্ত প্রাসঙ্গিক। প্রথমে বিশ্বযুদ্ধ এবং পরে ফ্যাসিবাদের কবলে পড়া ইতালির পরিপ্রেক্ষিতে লেখা সেই প্রবন্ধ একশো বছর পরে পড়ার সময় আজকের ভারতে নির্দিষ্ট পরিস্থিতি যেমন মাথায় রাখতে হবে তেমনই ইতিহাস নির্দিষ্ট কর্তব্য পালনের লক্ষ্যে মার্কসবাদের সাধারণ সুত্রগুলিকেও আমাদের আরেকবার ঝালিয়ে নিতে হবে।

Ideas are bulletproof...

২০ জানুয়ারী ২০২৩ (শুক্র বার) বাংলা ১৯২৮ সালে ১৪ ই জুন আর্জেন্টিনার রোজারিওতে জন্ম। নানান শারীরিক অসুস্থতা সত্ত্বেও প্রচুর অধ্যাবসায়ের

কিউবা- এক অনন্য সমাজতান্ত্রিক নির্মাণ...

১৯ জানুয়ারি, ২০২৩ অব্যাহত মৃত্যুমিছিলে ক্রমশ মানবশূন্য হতে চলেছে ইতালির তুরিণ। মারণ করোনার দাপটের থেকে সভ্যতা টিকিয়ে রাখার লড়াইয়ে মুখ