cpi(m) state committee

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটির সভা: প্রেস বিবৃতি

সংযুক্ত কিষাণ মোর্চা ২৭সেপ্টেম্বর ভারত বন্‌ধের ডাক দিয়েছে। পশ্চিমবঙ্গে ওইদিন সর্বাত্মক সাধারণ ধর্মঘট হবে। জনগণের সমস্ত অংশকে এই ধর্মঘটে শামিল করতে এখনই প্রচার তুঙ্গে তুলতে হবে। কোনো বাধা এলে তার মোকাবিলা করেই এই ধর্মঘট হবে।

দেশ বদলের ডাকে ২৭ সেপ্টেম্বর সাধারণ ধর্মঘট... ইন্দ্রজিৎ ঘোষ।

১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, সোমবার জনবিরোধী, কৃষক বিরোধী তিনটি কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতে আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ দেশ জোড়া ভারত বন্ধের

দেশ বাঁচাতে ২৭ সেপ্টেম্বর সাধারণ ধর্মঘট সফল করুন ... অমিয় পাত্র

২০০৩ সালে  কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন এন ডি এ সরকার একটি মডেল আইনের খসড়া রাজ্যগুলির কাছে পাঠায়। কৃষি রাজ্য তালিকাভূক্ত বিষয়, তাই

General Secretary States

ত্রিপুরার ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখলেন সীতারাম ইয়েচুরি

আক্রমন রোধ করতে এবং অপরাধীদের গ্রেপ্তার করতে পুলিশের ব্যর্থতা যদি বাস্তবিক হয়ও তাহলেও মনে রাখতে হয় সংবিধানের নীতিগুলি বাস্তবায়নের দায়িত্ব কেন্দ্রীয় সরকার বাধ্যবাধকতা।

PB Statement

ত্রিপুরায় হামলা চালানোর তীব্র নিন্দা পলিট ব্যুরোর

যে কায়দায় বিজেপি’র গুন্ডাবাহিনী পরিচালিত হয়েছে তাতে রাজ্য সরকারের এই ঘটনায় সরাসরি যোগসাজশ স্পষ্ট হয়েছে। এই হামলাগুলি হয়েছে কারণ শাসক দল বিজেপি ত্রিপুরা রাজ্যের প্রধান বিরোধী দলের কার্যকলাপ দমন করার চেষ্টা করতে চেয়েও বারে বারে ব্যর্থ হয়েছে।

Food Move 1

"১৪৪ ধারা ভাঙবো, দলে দলে ১৪৪ ধারা ভাঙবো, একজন দুজন করে নয়, হাজার হাজার লোক ১৪৪ ধারা ভাঙবো" - বিধানসভায় জ্যোতি বসু

১৯৫৯ সালের ৩১ আগস্ট শহীদ মিনার ময়দানে তিন লক্ষাধিক মানুষ জমায়েত হয়েছিল খাদ্যমন্ত্রী প্রফুল্ল চন্দ্র সেনের অপসারণ এবং খাদ্যের দাবিতে। পুলিশ মিছিলের ওপর গুলি চালায়। এই খাদ্য আন্দোলনে ৮০ জন শহীদ হন, নিখোঁজ হন অন্তত ২০০ মানুষ।

খাদ্য আন্দোলন প্রসঙ্গে পার্টি চিঠি (১৯৫৮)

১৯৫৯ সালের খাদ্য আন্দোলন পশ্চিমবঙ্গ সহ সারা দেশের মেহনতি মানুষের লড়াইতে এক অনন্য নজীর। তৎকালীন খাদ্য সংকটের জন্য প্রাদেশিক সরকারের অপদার্থতাই ছিল মূলত দায়ী। সেই সময় অবিভক্ত কমিউনিস্ট পার্টির প্রাদেশিক কমিটি রাজ্যের সমস্ত পার্টি ইউনিটকে আসন্ন খাদ্য সংকট মোকাবিলায় নির্দিষ্ট পথনির্দেশ দেয়। পার্টি চিঠির আকারে সেই নির্দেশ পার্টি ইউনিটগুলিতে পাঠানো হয়। রাজ্য ওয়েবসাইটের পক্ষ থেকে সেই পার্টি চিঠিই প্রকাশ করা হল। এই চিঠি শুধুই এক ঐতিহাসিক দলীল না, আজকের পরিস্থিতির ব্যাখ্যা, কর্মসূচি গ্রহণ এবং মোকাবিলায় কমিউনিস্টদের দৃষ্টিভঙ্গি বুঝতেও সহায়ক।

Biman Bose on Food Movement

খাদ্য আন্দোলনের অভিজ্ঞতা

খাদ্য আন্দোলন আমাদের রাজ্যে এবং দেশে মানুষের লড়াই-সংগ্রামের ইতিহাসে এক অনন্য নজীর। নিজেদের অধিকারের ন্যায্য দাবীসহ শাসকের সামনাসামনি হলে খেটেখাওয়া-মেহনতি মানুষের বিরুদ্ধে শাসকের আসল চেহারাটা বেরিয়ে আসে – তখন সেই লড়াই দাবী মেটানোর স্তর অতিক্রম করে সংগ্রামী মানুষের চেতনাকে এক নতুন স্তরে পৌঁছে দেয়। ঐতিহাসিক খাদ্য আন্দোলনকে এই আলোকেই দেখতে হবে, বিচার করতে হবে।

মহামারী উত্তর শিক্ষাঃ প্রযুক্তি এবং বৈষম্য - অনিরুদ্ধ চক্রবর্তী ...

কোভিড -১৯ এর বিপর্যয়কর প্রভাবগুলির মুখোমুখি ভারত।। এই কারণে শিক্ষায়ও ব্যাপক সংকট দেখা দিয়েছে। গত বছর মার্চ মাস থেকে, অতিমারীর