2

স্বাধীনতা সংগ্রাম সঞ্জাত দেশের সংবিধান (২য় পর্ব)

স্বাধীনতা সংগ্রাম সঞ্জাত এই নানাবিধ ভাবনার প্রেক্ষাপটেই ‘ভারতের ধারনা’। তাঁকে মূল সূত্র রেখেই ভারতের সংবিধান। স্বাধীন ভারতের প্রাথমিক কাজ এই সংবিধানকে রক্ষা করা এবং সংবিধানের নির্দেশকে কার্যকরী করা। অতীতের মতই সেক্ষেত্রে বামপন্থী শক্তিকে ধারাবাহিকভাবে লড়াই জারি রাখতে হয়েছে।

স্বাধীন দেশ ও দেশদ্রোহীতা আইন

সুপ্রীম কোর্ট কেন্দ্রকে বলেছে যতদিন না বিবেচনা করছে স্টে থাকবে।সোমনাথ লাহিড়ীর বক্তব্য আজ আবার গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠিছে সাংবিধানিক আলোচনায়।আর্টিক্যাল ১৯ এর আলোচনায়। গণতন্ত্রের আলোচনায়,বিরোধিতার আলোচনায়।

১২৪এ: মোদী বনাম দেশ

মোদী সরকারের হলফনামায় চালাকি ছিল। বিশেষজ্ঞরা কেউ কেউ মনে করিয়েছেন যে আদালতে পুনর্বিবেচনার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। আবার আদালতকে সরেও যেতে বলা হয়েছে পুনর্বিবেচনা প্রক্রিয়ার থেকে। অর্থাৎ প্রশাসনিক স্তরে নিয়ন্ত্রণ নিজেদের হাতে রেখে এই কাজ সারার আগ্রহ দেখাচ্ছে মোদী সরকার। নাগরিক স্বাধীনতার প্রতি দায়বদ্ধতার সঙ্গে অখণ্ডতা এবং সার্বভৌমত্বের শর্ত জুড়ে দেওয়া হয়েছে। বারবার প্রধানমন্ত্রীকে টেনে এনে বোঝানোর চেষ্টা হয়েছে সরকার নাগরিক স্বাধীনতার প্রশ্নে সংবেদনশীল।

১৫ই অগাস্ট ১৯৪৭ – ১৫ই অগাস্ট ২০২০ - বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য

৫ অগাস্ট ২০২০ উত্তরপ্রদেশের ফৈজাবাদ জেলার অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের ভিত পূজা হল।সেখানে সশরীরে উপস্থিত ছিলেন ভারতের গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্রের প্রধানমন্ত্রী।