‘কেপ্ট প্রেস’ এবং পেত্রোগ্রাদে এক আমেরিকান - চন্দন দাস

আমেরিকার শাসকদের ক্রোধ লোকটির প্রতি স্বাভাবিক। প্রথমত, লোকটিও আমেরিকান। দ্বিতীয়ত, পড়াশোনা করেছেন হার্ভার্ডে। তবু পুঁজিবাদী অর্থনীতির নিষ্ঠাবান প্রচারক হওয়ার বদলে হয়েছেন র‌্যাডিক্যাল। তৃতীয়ত, সবচেয়ে যা মারাত্মক — সোভিয়েত বিপ্লবের মত ‘ইতরদের হিংসা, বিশৃঙ্খলা’-র অনুপুঙ্খ বিবরণ লোকটি সংগ্রহ করেছেন প্রকাশ্যে — পেত্রোগ্রাদের কাদাভরা রাস্তায় হেঁটেচলে, নোংরা দেওয়াল থেকে সযত্নে গোছা গোছা ইশ্‌তেহার, ঘোষনাপত্র সোল্লাসে সংগ্রহ করে। ছদ্মবেশে রাশিয়া গেছেন। সেখানে মজুর, সৈনিক, কৃষকদের চিৎকার, তর্কের মাঝে পা মুড়ে বসে, তাঁদের আলোচনা থেকে ‘নোট’ নিয়েছেন। আর সেই সব কিনা গুছিয়ে বয়ে এনেছেন দেশে। লিখেছেন লুকিয়ে — খোদ নিউ ইয়র্কে বসে।

পঞ্চায়েত - পঞ্চায়েতে নারী: তৃণমূলের চুলের মুঠি, বামফ্রন্টের কুলটিকরি

কৌশলে মহিলা, আর্থিক-সামাজিক ভাবে পিছিয়ে থাকা অংশকে পঞ্চায়েত পরিচালনার সংবিধানসম্মত অধিকার থেকে ছুঁড়ে ফেলে দিচ্ছে উচ্চবর্ণ, ধনীদের পরিচালিত বিজেপি। মারাত্মক আক্রান্ত মহিলাদের অধিকার।

মমতাকে তাড়াবে লাল ঝান্ডা

বাঙলা থেকে তৃণমূল খেদানোর লড়াই শুরু হয়েছে গেছে মাননীয়া। গ্রাম বাঙলায় অলিতে গলিতে এক চিলতে লাল পতাকা কিন্তু আবার ফিরছে। সিঙ্গুরের শশ্মান থেকে ফিনিক্স কিন্তু আবার উড়ছে। ফিদেল বলেছিলেন History will absolve me। বুদ্ধবাবু বলেছিলেন “একটা বড় চক্রান্তের শিকার রাজ্য। ১০ বছর মানুষ ঠিক বুঝতে পারবেন।” পারছেনও।

ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি গঠন – ঐতিহ্য ও উত্তরাধিকারঃমানবেশ চৌধুরি

১৭ অক্টোবর ২০২২, সোমবার দ্বিতীয় পর্ব ৪ এভাবে তো বাইরে থেকে সাহায্য করা শুরু হলো। কিন্তু দেশের মধ্যে কী হতে

পঞ্চায়েত আর মহাজনের গল্প - চন্দন দাস...

১৬ অক্টোবর ২০২২, রবিবার ষষ্ঠ পর্ব কাকদ্বীপের গল্প। ১৯৮২-৮৩-র গল্প।গল্প — কিন্তু সত্যি।কাকদ্বীপে প্রতাপাদিত্য নগর নামে একটি পঞ্চায়েত আছে। তখনও

বামফ্রন্টের জমি বন্টন, তৃণমূলের ‘জমি ডাকাতি’ - চন্দন দাস...

১৫ অক্টোবর ২০২২, শনিবার পঞ্চম-পর্ব বদলে গেছিল গ্রামীণ অর্থনীতি। যা না হলে গনতন্ত্রের বিকাশ অসম্ভব ছিল। আর সেই কাজ করেছিল

‘শূদ্র জাগরণ’? বদলে গেল গ্রামের সমাজ -চন্দন দাস...

১৫ অক্টোবর ২০২২, শনিবার চতুর্থ পর্ব বামফ্রন্ট সরকারের সময়কালে পঞ্চায়েতে কী বদল এসেছিল — তা বুঝতে তৃণমূল সরকারের আমলের বক্তব্য

রণদিভের ইঙ্গিত,ছাত্র-যুবদের ভূমিকা, ‘জনগনের পঞ্চায়েত’ - চন্দন দাস...

তৃণমূলের অভ্যন্তরীণ অবস্থা টলমল। মমতা ব্যানার্জির সরকারের বেহাল অবস্থা। দুর্নীতি, চাকরি বিক্রী, সর্বস্তরে কাটমানি, কমিশনের দুঃশাসন তাঁর সরকার কায়েম করেছে।

তৃণমূল ও দুর্নীতি : সুদীপ্ত বোস...

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, প্রথম পর্ব রাজ্যের মুখে ‘আলকতারা’ মাখাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী নিজেই! তখন মমতা ব্যানার্জি কংগ্রেসে। ১৯৮৬ সালের ১২ জানুয়ারি।বেকার যুবদের

নরক দর্শনের ৭৭ বছর

আশি হাজার মানুষ মারা গিয়েছিলেন। যারা আগুনে পুড়ে মারা গেলেন না, তারা তেজস্ক্রিয় বিকিরণের শিকার হয়ে বেঁচে রইলেন। এদের বলা হয় হিবাকুশা। এমনকি মায়ের পেটে যারা ছিলেন এবং হাইপো সেন্টারের ২ কিলোমিটারের মধ্যে সন্তানসম্ভবা মা ছিলেন বা দুই সপ্তাহের মধ্যে গিয়েছিলেন, তারা সবাই হিবাকুশা।