অক্ষয় কুমার দত্ত জন্ম দ্বিশত বর্ষ - মৃদুল দে

১৫জুলাই ২০২০


অক্ষয় কুমার দত্তের জন্ম- ১৫ জুলাই, ১৮২০; জীবনাবসান - ১৮ মে, ১৮৮৬ । ঊনবিংশ শতাব্দীতে বাংলার সংস্কার আন্দোলনের এবং বিজ্ঞানসম্মত যুক্তিবাদ প্রতিষ্ঠার কঠিন কাজে অন্যতম পুরোধা ব্যক্তিত্ব ।

শৈশব থেকে দারিদ্রের সঙ্গে লড়াই তাঁর । নিজের চেষ্টায় সারা জীবন বিভিন্ন বিষয়ে জ্ঞানার্জনের জন্য আত্মনিয়োগ করেন । ইংরেজি , বাংলা ছাড়াও সংস্কৃত, জার্মান, ফরাসী ভাষাও তিনি আয়ত্ব করেন । ১৮৪২ সালে প্রকাশিত তত্ত্ববোধিনী পত্রিকার বারো বছর সম্পাদনা করেন । তখন ছিল এটা সেরা সাময়িকী । বিজ্ঞান, ইতিহাস ভূগোল, দর্শন, সংস্কৃতি, সাহিত্য ইত্যাদি বিভিন্ন বিষয়ে তাতে সমৃদ্ধ আলোচনা থাকতো । বাল্য বিবাহ ও বিভিন্ন কুসংস্কারের বিরুদ্ধে, নারীশিক্ষার প্রসার ও হিন্দু বিধবাদের সপক্ষে যুক্তিপূর্ণ লেখা তাতে প্রকাশিত হতো । গ্রামবাংলায় জমিদারদের অত্যাচার, অসহায় কৃষকদের ওপর জমিদার ও তাদের নিযুক্ত গোমস্তাদের নির্মম অত্যাচার এই পত্রিকায় তিনি তুলে ধরেছেন । সামাজিক আন্দোলনেও তাঁর বিরাট ভূমিকা । 'ধর্মনীতি' নিবন্ধে তাঁর অকাট্য যুক্তি ছিল, একই মানদন্ডে বিচার্য নারী ও পুরুষ, নারী-পুরুষ ভেদে মনুষ্য চরিত্র অভিন্ন, বিপত্নীক বিয়ে করতে পারলে বিধবা বিবাহে কেন আপত্তি ? বিজ্ঞানভিত্তিক শিক্ষাই প্রকৃত শিক্ষা- এর দ্বারাই তিনি অন্ধবিশ্বাস ও কুসংস্কারের বিরুদ্ধে তাঁর সংগ্রাম চালিয়েছেন । বেদের অভ্রান্ততার বিরুদ্ধে লড়াইতে তিনি ব্রাহ্মসমাজে ছাপ ফেলেন ।


বিদ্যাসাগর তাঁর প্রতিষ্ঠিত নর্মাল স্কুলে তাঁকে প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব দেন যদিও অসুস্থতার জন্য তিন বছরের বেশি তিনি কাজ করতে পারেননি । হাতে কলমে তিনি বিজ্ঞান চর্চা করেছেন যার পরিচয় তাঁর নানা শানিত মতামতে ও বক্তব্যে । তাঁর লেখা "পদার্থবিদ্যা" (১৮৫৬) ছিল এক উল্লেখযোগ্য পাঠ্যপুস্তক । এছাড়া, তিনভাগে প্রকাশিত হয় তাঁর "চারুপাঠ" । আরো অনেক গুরুত্বপূর্ণ লেখা প্রকাশিত হয় যার মধ্যে উল্লেখ্য "ভারতবর্ষীয় উপাসক- সম্প্রদায়" । এর দীর্ঘ দুটি অসাধারন 'উপক্রমনিকা'য় বা ভূমিকায় তিনি আর্য ভাষা ও সাহিত্য সংস্কৃতির মুখ্য কয়েকটি দিক নিয়ে অসামান্য আলোচনা করেছেন যখন তিনি গুরুতর অসুস্থ । মৃত্যুর পর তাঁর বেশ কয়েকটি গবেষণালব্ধ রচনা প্রকাশিত হয় ।
ভারতে এখন ধর্মান্ধতার সাইনবোর্ডে ফ্যাসিস্ট হিন্দুত্বের রাষ্ট্র কায়েমের দিকে ধাবমান মোদি সরকার ও তার চালক সঙ্ঘ পরিবার । এর বিরুদ্ধে লড়াইতে অক্ষয় কুমার দত্তের অবদান প্রেরণা যোগায় ।
শেয়ার করুন

উত্তর দিন