সম্প্রীতি মিছিলে অংশ নেবে বামফ্রন্ট ও সহযোগী দলগুলি: বিমান বসু

May 23rd, 2019 [IST]

নিজস্ব প্রতিনিধি: কলকাতা, ৩রা এপ্রিল— সম্প্রীতির আবেদন নিয়ে শিল্পী সাহিত্যিক বুদ্ধিজীবীরা কলকাতা শহরে আগামী ৮ই এপ্রিল যে মহামিছিলের ডাক দিয়েছেন কোনও পতাকা ছাড়া তাতে অংশগ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে এরাজ্যের বামফ্রন্ট এবং সহযোগী দলগুলি। মঙ্গলবার বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু ১৭টি রাজনৈতিক দলের পক্ষ থেকে এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে সাংবাদিকদের বলেছেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও শান্তি রক্ষার বার্তা নিয়ে তাঁরা যে মিছিলের আহবান জানিয়েছেন তাকে আমরা সমর্থন করছি। আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি কোনও দলীয় পতাকা না নিয়ে ঐ মিছিলে আমরাও অংশ নেবো। তবে আমরা প্রত্যক্ষ রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরা মিছিলের সামনে গিয়ে দাঁড়াবো না, আমরা পিছনে থাকবো। মিছিলের যারা আহবান জানিয়েছেন সেই শিল্পী সাহিত্যিক বুদ্ধিজীবীরাই সামনে থাকবেন এটাই কাম্য।

সোমবারই কলকাতায় ইরান সোসাইটিতে একটি সাংবাদিক বৈঠক করে শিল্পী সাহিত্যিক বুদ্ধিজীবীরা জানিয়েছেন যে ‘রামনবমীকে ঘিরে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায় হিংস্র সাম্প্রদায়িক খোলাখুলি প্রচার, উসকানিমূলক আস্ফালন এবং তার পরিণামে দাঙ্গাহাঙ্গামার যে কদর্য ছবি জনসাধারণ চোখের ওপর দেখেছেন তা গত অর্ধশতকে এ রাজ্যে দেখা যায়নি। এই সব ঘটনা পশ্চিমবঙ্গের সমন্বয়মূলক সংস্কৃতিকে এবং এ রাজ্যের মর্যাদাকে গভীরভাবে আঘাত করেছে। ঘটনার আগের দিন প্রশাসনের সর্বোচ্চ স্তর থেকে অস্ত্র হাতে মিছিলের ওপর যে পরস্পরবিরোধী নির্দেশ দেওয়া হয়, পরের দিন আইনশৃঙ্খলার পরিস্থিতির ওপর তার প্রতিকূল প্রভাব পড়েছে।’ এই পরিপ্রেক্ষিতেই শান্তি সম্প্রীতির মহামিছিলের আহবান জানিয়ে তাঁরা বলেছেন যে কোনও রাজনৈতিক রং ছাড়াই এই মিছিল করা হবে। মিছিলের আবেদন সংবলিত বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, শঙ্খ ঘোষ, নবনীতা দেবসেন, তরুণ মজুমদার, সমরেশ মজুমদার,অশোক গাঙ্গুলি, কৌশিক সেন, শমীক বন্দ্যোপাধ্যায়, ওয়াসিম কাপুর সহ একশোর বেশি বিশিষ্টজন।

এদিন বিমান বসু সাংবাদিকদের বলেন, আমরা এর আগেই ৩১শে মার্চ ১৭টি দলের বৈঠকে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম যে বুদ্ধিজীবীরা বর্তমান পরিস্থিতিতে শান্তি ও সম্প্রীতির জন্য মিছিলের ডাক দিলে আমরা তাতে অংশ নেবো। এখন সংবাদমাধ্যমে শিল্পী সাহিত্যিক বুদ্ধিজীবীদের এই ঘোষণা দেখে আমরা তাঁদের উদ্যোগকে পূর্ণ সমর্থন করছি। সমস্ত নাগরিক যারাই সুস্থভাবে বাঁচতে চান তাঁদের কাছেই আমাদের আবেদন এই মিছিলে অংশগ্রহণ করুন। যারা রাজনীতি করেন না, তাঁদেরও বলবো যে সাম্প্রদায়িকতার বিষময় ফল কাউকে রেহাই দেবে না। তাই আপনারাও সুস্থভাবে সকলে মিলে বাঁচার জন্য সম্প্রীতির মিছিলে আসুন। রবিবার দুপুর ৩টায় ধর্মতলায় সমবেত হোন, সেখান থেকে রবীন্দ্র সদন পর্যন্ত মিছিল হবে।